মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৬:০৬ পূর্বাহ্ন

চন্দনাইশ বৈলতলীতে এক কাঠমিস্ত্রির মরদেহ উদ্ধার

জনি আচার্য্য
  • Update Time : শনিবার, ৭ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৬০ Time View

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার বৈলতলী মোল্লা বাড়ী এলাকায় ৫ই নভেম্বর দিবাগত রাত ৮ টার সময় কাঠমিস্ত্রী খোরশেদ আলম (২৫) নামের এক ব্যাক্তির লাশ উদ্ধার করেছে চন্দনাইশ থানা পুলিশ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান তার মৃত্যুর তিন চার দিন আগে থেকে এলাকায় দেখা যায়নি মোঃ খোরশেদকে। পরিচিতরা বেশ কয়েকবার তার সাথে ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়। সর্বশেষ গত ৫ নভেম্বর দিবাগত রাতে তার শ্বশুর বাড়ির সামনে সুপারি বাগানে তার লাশ পাওয়া যায়।জানা যায় সে একই গ্রামের মৃত আবদুল আজিমের পুত্র।

স্থানীয়রা আরো জানান সাতকানিয়া থেকে একজন তার ছোট ভাই মোরশেদকে মোবাইল ফোনে খোরশেদ বিষ পান করে অজ্ঞান অবস্থায় আমিলাইষ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ঘাট এলাকায় পড়ে আছে বলে জানান। পরে মোরশেদ তার চাচাতো ভাই জহির ও রহিম’কে ঘটনাস্থলে পাঠায়।

তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছতে পৌঁছতে খোরশেদ মারা যান, পরে তার মরদেহ সিএনজির করে নিয়ে এসে তার শ্বশুর বাড়ির সামনে ফেলে চলে যায়। এলাকাবাসীর ঘটনাটি দৃষ্টিগোচর হলে নিকটস্থ চন্দনাইশ থানায় জানালে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠায়। ৬ নভেম্বর সন্ধ্যায় তার মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেন। এদিকে এলাকাবাসীর অভিমত নিহত খোরশেদের মুখ থেকে কোন বিষের গন্ধ পাওয়া যায়নি। আসলে তার মৃত্যু হত্যা নাকি আত্মহত্যা তা অনিশ্চিত।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চন্দনাইশ থানার অফিসার ইনচার্জ নাসির উদ্দীন সরকার স্টার বাংলাকে মুঠোফোনে বলেন। আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি।লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করি।তবে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন হাতে আসলে আসল মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।তবে সংবাদের ভিত্তিতে একটি ইউটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category