মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:১০ পূর্বাহ্ন

মহেশখালীতে মাদ্রাসা দখলকে কেদ্র করে সন্ত্রাসীদের হামলায় সাইফুল গুরুতর আহত

প্রতিনিধির নাম
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১

মফিজুর রহমান, মহেশখালী প্রতিনিধি :

মহেশখালীতে মাদ্রাসার নাম পরিবর্তনের বিরুদ্ধে মানবন্ধন, প্রতিবাদ সভা করায়, সন্ত্রাসীরা মাদ্রাসা দখলের চেষ্টায় ব্যার্থ হয়ে হোছাইনিয়া ফজলুল উলুম হাফেজিয়া মদ্রাসার প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সদস্য সাইফুল ইসলামকে পিটিয়ে মর্মান্তিকভাবে আহত করেছেন।

রবিবার (৫ সেপ্টেম্বর), দুপুরে উপজেলার ধলঘাটা ইউনিয়নের সুপরিচিত দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হোছাইনিয়া ফজলুল উলুম হাফেজিয়া মাদ্রাসা। এ প্রতিষ্ঠান ১৯৮৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়ে প্রায় ২৩ বছর যাবৎ দীনি শিক্ষা দিয়ে এসেছেন। হঠাৎ ধলঘাটা ইউনিয়নের এক কুচক্রী মহল মাদ্রাসা নাম পরিবর্তন করে নতুন নাম স্থাপনার দোহায় দিয়ে মাদ্রাসা দখল করা চেষ্ঠা রয়েছে। গত ৪ সেপ্টেম্বর মাদ্রাসার নাম পরিবর্তানের বিরুদ্ধে সাপমারারডেইল জামে-মসজিদের মাঠ প্রাঙ্গণে প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের উদ্যোগে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত করেছেন। উক্ত মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সভাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় এক কুচক্রী মহল মাদ্রাসা প্রাক্তন ছাত্রদের উপর হামলা করে। বেশ কয়েক জন প্রাক্তন ছাত্র আহত করেছ। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি আহত হয়েছেন সাইফুল ইসলাম।

মোহাম্মদ দিদারুল ইসলাম জানান, ঐ কুচক্রী মহল মাদ্রাসাকে দখল করে বাসা, দোকান ঘর করার পায়তারা করে আসছে। তারা এলাকার চিহ্নি চাঁদাবাজ। মাদ্রাসা দখল করার জন্য হোছাইনিয়া ফজলুল উলুম হাফেজিয়া মাদ্রাসার প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের একজন সদস্য সাইফুল ইসলামের উপর হামলা করে। হাফেজখানার পরিচালক হাফেজ ফরিদুল আলমকে অকাট্য ভাষায় আচার আচরণ ও হুমকি দেয়া। আমরা এলাকাবাসী মাদ্রাসা রক্ষাত্বে মহেশখালী থানা পুলিশের সহযোগিতা কামনা করছি। এ মাদ্রাসা হওয়ার কারণে অনেকের স্বপ্ন পুরণ হয়েছে। অনেকেই হাফেজ হয়ে দ্বীনি শিক্ষা দিয়ে আসছেন।

তারা মাদ্রাসা রক্ষা করার জন্য মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, সোসাল মিডিয়ার মাধ্যমে পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

Please Share This Post in Your Social Media

এ বিভাগের আরো সংবাদ