মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:০৭ পূর্বাহ্ন

নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন প্রত্যাশী চন্দনাইশ উপজেলা ধোপাছড়ি ইউনিয়নে মোহাম্মদ আব্দুল আলিম।

প্রতিনিধির নাম
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৪ আগস্ট, ২০২১

মোহাম্মদ নাসির বিশেষ প্রতিনিধি

সামনে আসছে গুরুত্বপূর্ণ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। সে নির্বাচনে ধোপাছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ থেকেই চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী মোঃ আব্দুল আলিম।
দল চাইলে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলা ধোপাছড়ি ইউনিয়নে ইউপি চেয়ারম্যান পদে নৌকার মাঝি হতে চান
চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের মানবধিকার বিষয়ক সাধারণ সম্পাদক হাজী কালুমিয়া ফাউন্ডেশনের ভাইস- চেয়ারম্যান ধোপাছড়ি সমিতির সভাপতি ও চন্দনাইশ সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক
উদীয়মান বিশিষ্ট ব্যবসায়ী রাজনীতিবিদ শিক্ষা অনুরাগী সমাজসেবক মোঃ আব্দুল আলিম।
গত ১৯ আগষ্ট তার বাসভবনে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, “আমাদের পরিবার দীর্ঘদিন ধরে ধোপাছড়ি ইউনিয়নের মানুষের সেবা করে আসছেন। আমার মরহুম পিতা ছিলেন ধোপাছড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মরহুম কালু মিয়া। আমার পিতা মৃত্যুর আগ পর্যন্ত মানুষের সেবা করে গেছেন আমিও আমার বাবাকে অনুসরণ করে
এই দোপাছড়ি বাসির সুখে সুখে দুঃখে পাশে ছিলাম আছি এবং ভবিষ্যতে ও থেকে
মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছি। আমি আমার পিতার নামে ধোপাছড়ি বাসি জন‍্য “”মরহুম কালুমিয়া ফাউন্ডেশন””নামে একটি ফাউন্ডেশন করেছি।

সেই ফাউন্ডেশন থেকেই গরীব মেদাবী ছাত্র ছাত্রীদের লেখা পড়ার খরচ গ্রামের গরীব ও অসহায় ছেয়েদের বিবাহের খরচ বিধবা অসহায় ও গরীবদেরকে প্রতিনিয়ত সাহায্য সহযোগিতা করে থাকি।
আমার ছোটবেলা থেকে আমার রাজনীতি ক্যারিয়ায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রতি ভালোবাসা আমার রক্ত বিন্দুর শিরায় প্রবাহিত, দলের সুখে দুঃখে সব সময় পাশে থেকেছি, দলের সাথে কখনো বেইমানী করি নাই। আশা করি সবকিছু বিবেচনা করে আওমীলীগ সভানেত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা আমাকে অবশ্যই মনোনয়ন দেবেন। আমি যদি মনোনয়ন পাই তাহলে অবশ্যই জয়লাভ করব। জনগনের সমস্যা সমাধান ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করব। ন্যায় বিচার নিশ্চিত করার পাশাপাশি মাদক, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ নির্মূল করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করে তিনি বলেন জনপ্রতিনিধির পক্ষে এসব কাজ করতে গেলে অনেকটা অনুকূল পরিবেশ পাওয়া যায় তাই চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার আগ্রহ প্রকাশ করেছি।তিনি আরো বলেন, ”তার জন্ম আওয়ামীলীগ পরিবারে। তিনি ছাত্রজীবনে ছাত্রলীগে যোগদানের মাধ্যমে রাজনীতি শুরু করেন।
তিনি বলেন আমি আমার ছাত্র জীবনে ছাত্রলীগের সদস্য হিসেবে রাজনীতি শুরু করেন।
১৯৭১সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে তাঁদের ঘরে হিন্দু ও বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, ”মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ব হয়ে তরুন প্রজন্মকে সু-সংগঠিত করে দোপাছড়ি ইউপি’তে নৌকা প্রতীকের বিজয় সুনিশ্চত করতে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ সেচ্ছাসেবক লীগ ছাত্রলীগ কৃষক লীগ সহ অত্র অঙ্গসংগঠনের
নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে ইউনিয়নের প্রতিটা ওয়ার্ডে মানুষের দ্বারে দ্বারে গিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন বার্তা পৌছে দেওয়ার জন্য এলাকায় সার্বক্ষনিক দলের হয়ে কাজ করছি। বিগত নির্বাচনেও চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করছিলাম। দল থেকে অন্যজনকে নৌকা প্রতীক দেয়া হলেও নৌকার বিপক্ষে যাইনি। ওই প্রার্থীর পক্ষে কাজ করে নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করতে কাজ করেছি।
আমি দলের মনোনয়ন পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত ‘গ্রাম হবে শহর’ এ ঘোষণা আমি বাস্তবে রূপদান করবো। সরকারি ত্রাণ, অনুদান, ভাতা উন্নয়ন কর্মকান্ডে সুষম বন্টন করবো। মাদক, সন্ত্রাস, ভিক্ষুক, দারিদ্র, বেকারত্ব মুক্ত ইউনিয়ন গড়বো, কর্ম সংস্থান সৃষ্টি করবো। সব মিলিয়ে আমি ধোপাছড়ি ইউনিয়নকে একটি মডেল ইউনিয়নে পরিনত করব। তিনি জনগণের উদ্দেশ্যে বলেন আমি আপনাদের কাছে শাসক হিসাবে নয় আপনাদের সেবক হিসাবে আপনাদের পাশে থাকতে চাই। আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন আমি যাতে আমি দেশ ও দশের করে যেতে পারি।

Please Share This Post in Your Social Media

এ বিভাগের আরো সংবাদ