শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০১:৪৩ পূর্বাহ্ন

ধর্মীয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পানছড়ি গাউছিয়া নার্সারীর বৃক্ষ রোপন কর্মসূচী

শাহজাহান কবির সাজু, পানছড়ি প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১

পানছড়ি গাউছিয়া নার্সারীর এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল “জীবন বাঁচাতে বৃক্ষ, জীবন সাজতে বৃক্ষ, আসুন বৃক্ষকে জানি, বৃক্ষকে চিনি”। বৃক্ষপ্রেমী আবদুল হালিম পানছড়ি গাউছিয়া নার্সারীর সত্ত্বাধিকারী। দীর্ঘ বছর ধরে নিজ উদ্দ্যেগে বিভিন্ন এলাকায় বৃক্ষ রোপন করে আসলেও এবারেরটা ছিল সম্পুর্ন ভিন্ন। তাই বিভিন্ন মহল থেকে বাহবা পেয়েছে এই তরুণ উদ্দ্যেক্তা। তাঁর নিজস্ব অর্থায়নে চলছে এলাকার ধর্মীয়, শিক্ষা ও চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানসমুহে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচী। পানছড়ি বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে তাঁর লাগানো কাঠ বাদাম গাছগুলো বিদ্যালয়কে করে তুলেছে দৃষ্টিনন্দন। এসবের সার্বিক তত্ত্বাবধান করছে পানছড়ি উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। তারই অংশ হিসেবে শুক্রবার পানছড়ির বিভিন্ন মসজিদ ও বৌদ্ধ বিহারে বৃক্ষ রোপন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন পাহাড়ী কৃষি গবেষনা কেন্দ্রের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মুন্সী রাশীদ আহম্মদ। কর্মসুচীতে অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা কৃষি অফিসার মো: নাজমুল ইসলাম মজুমদার, পানছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আনচারুল করিম, ওসি তদন্ত মো: কামরুজ্জামান। পানছড়ি থানার ওসি আনচারুল করিম নিজ উদ্দ্যেগে বৃক্ষরোপনের মতো সুন্দর একটি কর্মকান্ডের জন্য উদ্দ্যেক্তা হালিমের ভূয়শী প্রশংসা করেন। মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মুন্সী রাশীদ আহম্মদ বলেন, বর্তমান বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য বৃক্ষরোপন অত্যন্ত জরুরী। যা দীর্ঘ বছর যাবৎ হালিম নিজস্ব নার্সারীর পাশাপাশি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিজ উদ্দ্যেগে করে যাচ্ছেন। কিন্তু এবারে ভিন্নতা এনে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোতে বৃক্ষ রোপন শুরু করে চমৎকার একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। তিনি তাঁর কর্মকান্ডকে স্বাগত জানান। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন আয়ুব নগর মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো: সুরুজ মিয়া, ইউপি সদস্য আমিরুল বশর, চৌধুরী পাড়া মহাম্রাইমুনি বৌদ্ধ বিহারের ইন্দাসারা ভিক্ষু, সুশীল মার্মা (শ্রমন) ও ক্যপ্রুচাই মারমা। এই কর্মসূচী চলমান থাকবে বলে জানালেন উদ্দ্যেক্তা আবদুল হালিম।

Please Share This Post in Your Social Media

এ বিভাগের আরো সংবাদ