মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ০৭:০৬ পূর্বাহ্ন

চাঁদপুর হরিনা নৌ পুলিশ ফাঁড়ির অভিযানে ১০লক্ষ মিটার কারেন্ট জাল সহ আটক ৭

আলমগীর বাবু, চাঁদপুর প্রতিনিধি:
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর, ২০২১

১২ অক্টোবর সকাল ৮ টা হতে দুপুর ১২ পর্যন্ত চাঁদপুর হরিনা নৌ পুলিশ ফাঁড়ির অভিযান পরিচালনা করিয়া ১০লক্ষ মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল সহ ৭ জন অসাধু জেলে ও ২ টি ইঞ্জিনচালিত নৌকা আটক করা হয়েছে। পরে চাঁদপুর মডেল থানায় আলাদা দুইটি

নিয়মিত মামলা দায়ের করে আসামীদের আদালতে প্রেরণ করা হয়। মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, শহিদুল ইসলাম, সহকারী উপ পুলিশ পরিদর্শক (নিঃ), হরিনাঘাট নৌ পুলিশ ফাঁড়ী, চাঁদপুর সদর, চাঁদপুর সঙ্গীয় নায়েক মোঃ সোহেল রানা, মোঃ মোশারফ হোসেন, মোঃ জাকির হোসেন সহ গ্রেফতারকৃত আসামী (১) মোঃ বাবুল খান (৩০) পিতা- ওয়াহাব খান, (২) জাহাঙ্গীর হাওলাদার (৩২) পিতা- আলী আহাম্মদ হাওলাদার, (৩) মোঃ সুমন মল্লিক(২৫) পিতা- হান্নান মল্লিক, (৪) মোঃ হুমায়ন খান (২৮) পিতা- হবু খান, (৫) আব্বাস দেওয়ান (৪৫) পিতা- আশরাফ আলী দেওয়ান, (৬) মোঃ ইমন মিয়া(১৮) পিতা- ফরিদ মিয়া, সর্ব সাং- সোয়াপুর, আটিগ্রাম ইউপি, থানা- মানিকগঞ্জ সদর, জেলা- মানিকগঞ্জ। বর্তমানে ইউসুফ গাজীর বাড়ী, লক্ষীপুরদের দখল হইতে উদ্ধারকৃত (ক)সাদা রং এর ০১ (এক) টি কারেন্ট জাল, যাহার দৈর্ঘ্য ১০,০০০ মিটার X গ্রন্থ ৫ মিটার= ৫০,০০০ বর্গ মিটার (যাহার অনুমান মূল্য (১০,০০০X৩০) = ৩,০০,০০০/-টাকা) (খ) ১টি ইঞ্জিন চালিত কাঠের তৈরী জেলে নৌকা। যাহার দৈর্ঘ্য অনুমান ১৮ হাত ও প্রস্থ অনুমান ০৩ হাত, যাহার ইঞ্জিন সহ নৌকার অনুমান মূল্য ৪০,০০০ টাকা (যাহা ফাঁড়ির হেফাজতে আছে) সহ আপনার থানায় হাজির হইয়া এই মর্মে এজাহার দায়ের করিতেছি যে, হরিনাঘাট নৌ পুলিশ ফাঁড়ীর জিডি নং- ২৪১ তাং ১২/১০/২০২১ মূলে মোঃ মিজানুর রহমান, পুলিশ পরিদর্শক (নিঃ), ইনচার্জ, হরিনাঘাট নৌ পুলিশ ফাঁড়ি, চাঁদপুর নেতৃত্বে আমি সহ সঙ্গীয় অফিসার ফোর্স সহ মেঘনা নদীতে “মা ইলিশ রক্ষা অভিযান”২১” অদ্য ১২/১০/২০২১ ইং তারিখ রাত অনুমান ১০.৩০ ঘটিকায় মেঘনা নদীতে কতিপয় জেলে মাছ ধরার জন্য অবৈধ কারেন্ট জাল পাতিতেছে দেখিতে পাইয়া স্পীডবোর্ট যোগে অনুমান ১১.৩০ ঘটিকায় চাঁদপুর সদর মডেল থানাধীন লক্ষীপুর ইউনিয়নের পশ্চিম পার্শ্বে মেঘনা নদীতে উপস্থিত হইয়া উপরোক্ত আসামীগণ ০১(এক) টি কারেন্ট জাল মাছ ধরার কাজে ব্যবহৃত ইঞ্জিন চালিত নৌকা সহ আটক করা হয়।আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে তাহারা উপরোক্ত নাম/ঠিকানা প্রকাশ করে এবং তাদের কথা বার্তা সন্দেহ হওয়ায় তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। মা ইলিশ রক্ষা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করিয়া কারেন্ট জাল নিজেদের হেফাজতে রাখিয়া মেঘনা নদীতে মাছ ধরার কাজে ব্যবহার করিতেছিল। উক্ত আসামীগন তাহাদের নিজেদের হেফাজতে অবৈধ কারেন্ট জাল রাখিয়া মৎস্য সুরক্ষা ও সংরক্ষণ আইন, ১৯৫০ (সংশোধিত ২০১৩) এর ৫(১)/৫ (২)(খ) ধারায় অপরাধ করিয়াছে। অতএব গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে সরকার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল নিজেদের দখলে রাখিয়া ও ব্যবহার করিয়া অপরাধ করায় তাহাদের বিরুদ্ধে মৎস্য সুরক্ষা ও সংক্ষণ আইন ১৯৫০ (সংশোধিত ২০১৩) এর ৫(১)/৫(২)(খ) ধারায় মামলা রুজু করিতে মর্জি হয়। আরও অভিযান পরিচালনা করিয়া এজাহার দায়ের করিতে সামান্য বিলম্ব হইল, উল্লেখ্য যে, জব্দকৃত ইঞ্জিন চালিত কাঠের নৌকা ও জাল হরিনাঘাট নৌ পুলিশ ফাঁড়ীর হেফাজতে আছে।
চাঁদপুর হরিনা নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মিজানুর রহমান বলেন, জাতীয় সম্পদ মা ইলিশ রক্ষায় ৪ অক্টোবর থেকে২৫ অক্টোবর”২১পর্যন্ত চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনা নদীর ৭০ কিলোমিটার এলাকায় নৌ পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। জেলেরা যাতে নদীতে মাছ শিকার করতে না পারে, সে জন্য নৌ পুলিশের বিভিন্ন ইউনিট সার্বক্ষনিক টহল অব্যাহত রেখেছে। এ ঘটনায় দুটি মামলা দায়ের করে জেলেদের আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

এ বিভাগের আরো সংবাদ