শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০২:১৩ পূর্বাহ্ন

চকরিয়ায় সন্ত্রাসী হামলায় ব্যবসায়ী অভিরনকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা

রাজু দাশ, চকরিয়া প্রতিনিধি :
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৫ অক্টোবর, ২০২১

কক্সবাজারের চকরিয়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে অভিরন দাস (৩০) নামের এক ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে ভাংচুর চালায় সন্ত্রাসীরা। প্রকাশ্যে একজন ব্যবসায়ীকে এভাবে সন্ত্রাসীরা দেশীয় অস্ত্র ও কিরিচ দিয়ে কোপানোর খবরে পুরো স্থানীয় ব্যবসায়ীদের আতংকের মধ্যে রয়েছেন।

গত সোমবার (৪ অক্টোবর) রাত ৭টার দিকে পৌরসভা কে.বি জালাল উদ্দীন সড়ক ৪নং ওয়ার্ড খোদারকুম এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

ব্যবসায়ী অভিরন দাস উপজেলা ফাঁসিয়াখালী ৯নং ওয়ার্ডে ছাইরাখালী মৃত বাবু মোহন দাসের ছেলে। গুরুতর আহত হয়ে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

স্থানীয় লোকজন ও থানায় দায়েরকৃত মামলার সূত্রে জানা যায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে উপজেলা কৈয়ারবিল ইউনিয়ন ছাইরাখালী জলদাস পাড়া ৯নং ওয়ার্ডে মোহন দাসের ছেলে চাঁদ মনি দাস ( ৩৩) ও তার বড় ভাই হরি মনি দাস (৩৬) রায় পদ দাস এর নেতৃত্বে এ হামলার ঘটনা ঘটায়। সোমরার রাত ৭ টার দিকে সন্ত্রাসীরা লোহার রড, দেশীয় অস্ত্র ও লাঠি নিয়ে সন্ত্রাসী কায়দায় পৌরশহরে এ.বি.পি ইঞ্জিনিয়ার ওয়ার্কশপ স্বাধিকারীর দোকানে ভিতর জোরপূর্বক প্রবেশ করে অভিরনকে কোপাতে থাকে। এসময় সন্ত্রাসী চাঁদ মণি দাসের হাতে থাকা রামদা দিয়ে অভিরনের ডান চোখ দৃষ্টি শক্তি চিরতরে নষ্ট করার উদ্দেশ্য কুপিয়ে গুরুতর জখম করে।

সন্ত্রাসীদের এলোপাতাড়ি কুপের আঘাতে কোমরে রক্তাক্ত করে। এ-সময় দোকানেও ভাংচুর করে। ক্যাশে থাকা নগদ ৯০ হাজার টাকা জোরপূর্বক ছিনিয়ে নিয়ে। হামলার ঘটনার সময় অভিরনের চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন ও ব্যবসাীরা এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীদের কবল থেকে তাকে মৃত্যুর কবল থেকে রক্ষা করে। পরে ঘটনাস্থল থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় অভিরন দাসকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁর অবস্থা বেগতিক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

ব্যবসায়ী অভিরন দাস বলেন, পারিবারিক শত্রুতার কারণে দীর্ঘদিন ধরেই আমাকে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিল সন্ত্রাসী চাঁদ মনি দাস ( ৩৩) ও তার বড় ভাই হরি মনি দাস (৩৬) রায় পদ দাস। এই ব্যাপারে স্থানীয় গণ্যমান ব্যাক্তিদের একাধিকবার অভিযোগ করা হয়েছে। এছাড়াও স্থানীয় সামাজিক সংঘটনে এ নিয়ে একাধিকবার বিচার-সালিসও হয়েছে। কিন্তু একটি কুচক্রী মহলের ইন্ধনে তারা আমাকে ও আমার পরিবারের ওপর একের পর এক সন্ত্রাসী হামলা করছেন। সোমবার রাত ৭টার দিকে আমার ব্যাবসায়ী প্রতিষ্ঠান এ.বি. পি ইঞ্জিনিয়ার ওয়ার্কশপ প্রতিষ্ঠানে আতর্কিতে আমার উপর পরিল্পিত হামলা চালায় এবং পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে গুরুতর আহত করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাংচুর ও লুটপাট চালায় আমার ব্যবসায়ী টাকা নগদ ৯০ হাজার টাকা নিয়ে যায়। এসময় আমার চিৎকারে আশপাশের লোকজন চকরিয়া থানার পুলিশ কে খবর দিলে ঘটনাস্থলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। স্থানীয়দের সহযোগিতা চাঁদ মনি দাস নামের এক সন্ত্রাসীকে আটক করা হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় আমাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্মরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেপার করা হয়।

তিনি আরো বলেন, বর্তমানে হামলাকরীদের ভয়ে আমার পরিবারের লোকজন ভয়ে আতংঙ্কের মধ্যে রয়েছে আবার যেকোন সময় সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হতে পারেন বলে জানান।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাকের মোহাম্মদ জুবায়ের জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। হামলার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। চাঁদ মনি দাস নামের একজনকে গ্রেফতার করা হয়ছে বলে জানান।

Please Share This Post in Your Social Media

এ বিভাগের আরো সংবাদ