মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:২২ পূর্বাহ্ন

গৃহকর্মীর সাড়া শরীর ব্লেড দিয়ে ক্ষত-বিক্ষত করে বাসা ছেড়ে পালালেন গৃহকর্তী

প্রতিনিধির নাম
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২১

জুবায়ের খন্দকার, ময়মনসিংহঃ-  ময়মনসিংহ নগরীর স্থানীয় চরপাড়া এলাকার একটি বাসায় ব্লেড দিয়ে শিশু গৃহকর্মী তানিয়ার শরীর ক্ষত-বিক্ষত করে বাসা ছেড়ে পালিয়ে গেছেন ওই বাসার গৃতকর্তী।

ঘটনার বিবরণে একটি সূত্র থেকে প্রাপ্ত খবর থেকে জানা গেছে যে, ময়মনসিংহে ফুলবাড়িয়া উপজেলার কোষমাইল পানের ভিটা গ্রামের বাসিন্দা তাজিম উদ্দিন ব্যবসায় তিনি একজন চা-পান বিক্রেতা অভাবের তাড়নায় পড়ে তাদের ৮ বছরের কন্যা শিশু তানিয়াকে ময়মনসিংহ নগরীর স্থানীয় চরপাড়ায় নিটু ও আসমা নামের দুই বোনের বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজে দেন। তাদের দুই বোনের মধ্যে আসমা ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপতালে কর্মরত আছেন। তারা দুই বোন ও আসমার স্বামী সাইফুল ইসলাম সব সময় এটাওটাসেটা নিয়ে গৃপরিচারিকা শিশু তানিয়ার উপর চালাতো অমানুষিক নির্যাতন।

ঘটনার দিন তার ৩ জন প্রথমে তানিয়ার গোপনাঙ্গে ব্লেড দিয়ে ক্ষত-বিক্ষত করে। এরপর তারা পর্যায়ক্রমে ব্লেড দিয়ে তার স্তন কেটে ফেলে। এতো কিছুতেও তাদের মন ভরলে ব্লেড দিয়ে তানিয়ার সাড়া শরীর ব্লেড দিয়ে কাটে। এতোকিছু সহ্য করতে না পেড়ে তানিয়া অজ্ঞান হয়ে পড়ে। সে সময় ওই ৩ নির্যাতনকারী গৃহপরিচারিকা তানিয়াকে ফুলবাড়িয়া পৌষমাইলের গ্রামের বাড়িতে ফেলে আসে। ওইভাবে তানিয়াকে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় গ্রামবাসী তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। এই ঘটনার খবর পেয়ে ফুলবাড়িয়া থানা পুলিশের ওসি জাকির হোসেন সঙ্গীয় অফিসার ফোর্স নিয়ে ফুলবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তানিয়াকে দেখতে যান।

এঘটনায় শিশু গৃহপরিচারিকা তানিয়ার চাচা বাদী হয়ে আসমা, আসমার ছোট বোন নিটু ও আসমার স্বামী সাইফুল ইসলামের বিরূদ্ধে ফুলবাড়িয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এক প্রশ্নের জবাবে ফুলবাড়িয়া থানার ওসি জাকির হোসেন বলেন-মূল ঘটনার সূত্রপাত যেহেতু ময়মনসিংহে সেহেতু ময়মনসংহ কোতোয়ালী মডেল থানার ওসিকে বিষয়টি আমি অবগত করেছি। তানিয়ার মা কমলা বেগম ময়মনসংহ কোতোয়ালী মডেল থানায় গিয়েছে।

এদিকে ময়মনসংহ কোতোয়ালী মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ফারুক হোসেন বলেন-ঘটনাটি আমি রাতে শুনেছি। অভিযোগ রাতে দেওয়ার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত থানায় কোন ধরনের অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানালেন ময়মনসংহ কোতোয়ালী মডেল থানার পুলিশ এই পরিদর্শক।

Please Share This Post in Your Social Media

এ বিভাগের আরো সংবাদ