মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫৫ পূর্বাহ্ন

আসামি না হয়েও আসামি সেজেছিলেন তারা আর আসল আসামি ছিল পর্দার আড়ালে অতঃপর আটক-৫

প্রতিনিধির নাম
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
আসামি না হয়েও আসামি সেজেছিলেন তারা আর আসল আসামি ছিল পর্দার আড়ালে অতঃপর আটক-৫
আসামি না হয়েও আসামি সেজেছিলেন তারা আর আসল আসামি ছিল পর্দার আড়ালে অতঃপর আটক-৫

জুবায়ের খন্দকার, ময়মনসিংহঃ-

১লা সেপ্টেম্বর বুধবার বিকালে ময়মনসিংহ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আসল আসামিরা পর্দার আড়ালে থেকে তাদের পরিবর্তে আদালতে জামিন নেওয়ার জন্য নকল ৫ আসামিকে হাজির করা হয়েছিল। বিষয়টি আঁচ করতে পেরে আদলত চত্ত্বর থেকেই তাদেরকে আটক করেছেন ময়মনসিংহ কোতোয়ালী মডেল থানা পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন-ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইল উপজেলার মোঃ নুরুল্লাহ (২৮), মোঃ সাইফুল ইসলাম (৩০), ওয়ালিউল্লাহ (২৬), মোঃ রফিকুল ইসলাম (৩৫) ও কিশোরগঞ্জ জেলার তাড়াইল উপজেলার সোহেল মিয়া (৩০)।

আদালত সূত্র থেকে জানা গেছে যে, নান্দাইল উপজেলায় মারামারি মামলার পলাতক ৫ আসামি-মুন্না মিয়া, শহর আলী, আজিম উদ্দিন, আবুল কাশেম এবং সুরুজ মিয়াদের পক্ষ থেকে গত তারিখে আদালতে জানানো হয় যে, উভয় পক্ষের মধ্যে আপস হয়ে গেছে। কাজে এই মামলাটি নিস্পত্বি হয়ে গেছে।

কিন্তু গতকাল বুধবার বিকাল আসামি পক্ষের আইনজীবী তানভী আহমেদ আদালতে জামিনের জন্য সাজানো  আসামিকে হাজির করেন। বিজ্ঞ আদালতের বিচারক আরিফুল ইসলাম ওই ৫ আসামিকে ডাকলে তাঁর কাছে বিষয়টি সন্দেহ হলে বিকাল ৫টার মধ্যে আসামিদেরকে জাতীয় পরিচয়পত্র আদালতে জমাদিতে বলেন। কিন্তু আসামিদ্বয় বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে পরিচয়পত্র জমা দিতে ব্যর্থ হয়। এরপর নিজেদের পরিচয় গোপন রেখে আসল ৫ আসামিদের পক্ষে আদালতে হাজির হয়ে জামিনের চেষ্টা করার অপরাধে তাদের ৫জনকে আটক করার নির্দেশ দেন আদালত।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ময়মনসিংহ কোতোয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ কামাল আকন্দ বলেন-আটককৃত ৫ যুবক তাদের পরিচয় গোপন করে অন্য আসামীর নামে আদালতে হাজির হয়ে জামিন নিতে আসলে তাদের কথায় বিজ্ঞ আদালতের সন্দেহ হলে তাদেরকে আটকের নির্দেশ দেন। আটকের পর তাদের বিরূদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। বর্তমানে তারা ৫জনই থানা হেফাজতে আছেন বলে জানালেন ময়মনসিংহ কোতোয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত এই  কর্মকর্তা।

Please Share This Post in Your Social Media

এ বিভাগের আরো সংবাদ